চা পাতা

চা পাতার ব্যবসার কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়

Share The Post

আমাদের কাছে প্রতিদিন অনেক হোলসেল কাস্টমার ফোন দিয়ে থাকে। চায়ের বাজারজাত ও মূল্যের জন্য। চায়ের মূল্য শুনে অনেকেই হাতাশ হয়ে যায় । তার একটাই কারন মূল্য নাকি অনেক বেশি, অনেক কোম্পানি নাকি আরও কম দামে চা পাতা বাজারে দেয়,
সেই কথা ধরে আজ আমি কিছু লিখলাম আপনাদের জন্য।

আসলে বাংলাদেশের সংস্কৃতির মুল ধারা প্রচালিত অনুযায়ী দেশের সব জেলায় সব ধরনের চা পাতা চলে না। কোন অঞ্চলে সিডি ডাস্ট কোন অঞ্চলে বিওপি, জিবিওপি, ওফ, পিফ, পিডি সহ আরও নানা রকম চা। তাই আপনাদের ব্যবসা করতে গেলে সব সময় মাথায় রাখতে হবে আপনার অঞ্চলে কোন চা পাতা চলে। সিডি চা নাকি বিওপি নাকি পিএফ। এগুলো আগে যাচাই করে মার্কেট এ চা ব্যবসার জন্য নামবেন।

আসলে চায়ের মূল্য নিয়ে সব থেকে বেশি বিপাকে পড়তে হয়। আপনারা যারা নতুন ব্যবসায়ী তারা সব সময় মূল্যকেই বেশি প্রাধান্য দিয়ে থাকেন। আপনারা মার্কেট এ মূল্যের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে চান যা আপনাকে প্রথম অবস্থাতেই থমকিয়ে দেয়। হয়তো ভাবতে থাকেন আমার লাভ কম হবে অথবা আপনি ঝরে পরবেন। আসলে তা না চায়ের মূল্যের জন্য কখনও ঝরে পরবেন না, ঝরে পরবেন তখনেই যখন আপনার চায়ের গুনগতমান ঠিক থাকবে না।

চা পাতার বাজার মূল্য অনুযায়ী ১২ হাজর টাকা কেজির চা আছে আবার আছে মাত্র ১২০/- টাকা কেজির। আপনি কি ১২ হাজার টাকা কেজির চা কিনবেন নাকি ১২০/- টাকা কেজির চা পাতা কিনবেন.???? খুবেই (!!!) তাই না..?
.
আসলে আমাদের দেশে ১২ হাজার টাকা দামের চা চলে না আবার ১২০/- কেজির চা চলে না। তাই মাথায় রাখতে হবে কোন দামের চা পাতা আমাদের দেশে এবং বিভিন্ন অঞ্চলে চলতে পারে। আমার ধারনা অনুযায়ী বাংলাদেশে ২৭০- ৩৪৫ টাকা দামের চা পাতা কিনে ভাল ব্যবসা করতে পারবেন। হয়তো আপনার লাভের পরিমান কম হবে কিন্তুু আপনি আপনার কাস্টমারদের সাপোর্ট দিয়ে সারাজীবন এই চা পাতার ব্যবসা করতে পারবেন।

মার্কেট এ আপনি ১৮০/- টাকা থেকে ২৪০/- টাকা দামেরও চা পাতা পাবেন। হয়তো সেগুলো আপনি ৩৩০/- টাকা থেকে ৩৮০/- টাকা পর্যন্ত বিক্রি করবেন। অনেক লাভ তাই না…..? আসলে আপনি এই মোটা লাভ করতে পারবেন মাত্র একবারেই, পরবর্তীতে আপনি লাভ তো দুরের ব্যবসা করতে পারেন না এবং কাস্টমারের বিশ্বাস হারাবেন।

আপনি প্রথমে মার্কেটের টার্গেট কাস্টমার সিলেক্ট করবেন। তারপর প্যাকেটজাত অথবা খোলা ভালমানের এবং ভাল বাগানের চা পাতা ক্রয় করবেন। অল্প লাভে গুনগতমানের চা পাতা আপনার কাস্টমারের কাছে তুলে দিবেন এবং আপনার চিন্তা থাকতে হবে যেন চা পাতাটি আপনি লং টাইম তাদের দিতে পারেন। আবার তাদের এমন ভাবে চা দিবেন যাতে করে উনি সময়মত আপনার কাছ থেকে চা পাতা পেয়ে যায়। আর আপনি যদি এমন চা পাতা আপনার এলাকায় ৫০ থেকে ৯০ জন ক্রেতার হাতে তুলে দেন তাহলে আপনি সফল উদ্যোক্তা হতে পারেন। এবং আপনি একজন সফল চা ব্যবসায়ি।

Facebook Comments Box

Share The Post

3 thoughts on “চা পাতার ব্যবসার কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়”

  1. আমি এক জন নতুর ব্যাবসায়ী হতে ছাই এখন আমি কি করতে পারি আমি চা পাতা দিয়ে ই শুরু করতে ছাই আর আমি এক জন ছাত্র ডিগ্রী ২য় বর্ষ আছি

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Shopping Cart